৯, ডিসেম্বর, ২০১৯, সোমবার | | ১১ রবিউস সানি ১৪৪১

‘৪০০ টাকায় বার্গার খেতে পারি, ২৪০ টাকার পেঁয়াজ মেনে নিতে পারি না’

পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি নিয়ে সমালোচনার বিষয়ে ইঙ্গিত করে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আক্তার বলেছেন, ‘মধ্যম আয়ের দেশে এসে ২৪০ টাকার পেঁয়াজ খেতে হচ্ছে। ৩০ টাকার পেঁয়াজ ২৪০ টাকা আমরা মেনে নিতে রাজি না। আবার দেখা যাচ্ছে, ৪০০ টাকা দিয়ে একটি বার্গার খেয়ে ফেলছি। সমস্যাটা হলো একটা মানসিক জায়গা আছে, তাই বলে আমি পেঁয়াজের দাম বাড়ানোর পক্ষে না।’ বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে ‘কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা ও নারী গৃহকর্মীদের প্রতি সহিংসতা রোধ’ শীর্ষক আলোচনাসভায় তিনি এ কথা বলেন। পেঁয়াজের দাম বাড়ানোর ক্ষেত্রে সিন্ডিকেটকে দায়ী করে শিরীন আক্তার বলেন, ‘অবশ্যই পেঁয়াজের দাম কমাতে হবে। এর পেছনে যে সিন্ডিকেট দায়ী, তাকে অবশ্যই শাস্তি পেতে হবে। মানুষকে জিম্মি করে যারা ব্যবসা করতে চায়, তাদের বরদাশত করা যাবে না। সে জন্য আমরা মনে করি, আজকে উন্নত হচ্ছি, এর সঙ্গে আমাদের মানসিক বৈকল্য থেকে মুক্ত হতে হবে।’ শ্রমিক-মালিকের সম্পর্কোন্নয়নের ওপর গুরুত্বারোপ করে তিনি বলেন, ‘উন্নত রাষ্ট্রগুলোতে গৃহকর্মীরা সারাদিন কাজ করেন, কাজ শেষে মালিক ও গৃহকর্মী একই টেবিলে বসে খায়। এটা হচ্ছে এক প্রকার সংস্কৃতি।’ আলোচনাসভায় আরও উপস্থিত ছিলেন অক্সফামের প্রকল্প সমন্বয়কারী গীতা রানী অধিকারী, নারী মৈত্রী’র নির্বাহী পরিচালক শাহীন আক্তার ডলি, জাতীয় গৃহশ্রমিক নেটওয়ার্কের সমন্বয়কারী আবুল হোসেন প্রমুখ।