৭, ডিসেম্বর, ২০১৯, শনিবার | | ৯ রবিউস সানি ১৪৪১

ঘরোয়া ক্রিকেটের ম্যাচ চলাকালীন মোবাইল নিষিদ্ধ

আপডেট: December 4, 2019

ঘরোয়া ক্রিকেটের ম্যাচ চলাকালীন মোবাইল নিষিদ্ধ

দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে দুর্নীতির কথা এখন অপ্রকাশিত সত্য। নিজেদের পছন্দের ক্লাবকে জিতিয়ে দিতে আম্পায়ারদের উপর প্রভাব বিস্তার করা বা ক্লাবগুলোর নিজেদের মাঝেই ফিক্সিং হয়ে ম্যাচ গড়াপেটার অভিযোগ বহুদিনের। তাই এসব রুখতে এবার ঘরোয়া ক্রিকেটের ম্যাচ চলাকালীন মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ করেছে সিসিডিএম।

এরইমধ্যে প্রথম বিভাগ, দ্বিতীয় বিভাগ এবং তৃতীয় বিভাগ ক্রিকেট লিগের দলগুলো পেয়েছে ঘোষণাপত্রটি। নির্দেশনা অনুসারে, ম্যাচের দিন কোনো ক্লাব কর্মকর্তা, কোচ, খেলোয়াড়, টিম বয় বা অন্য কোনো সাপোর্ট স্টাফরা মাঠে মোবাইল বা ইলেকট্রনিকস ডিভাইস সঙ্গে নিতে পারবেন না। কেবল ম্যানেজাররাই সঙ্গে মোবাইল রাখতে পারবেন।

ঢাকার প্রথম বিভাগ ও তৃতীয় বিভাগ ক্রিকেট লিগে ম্যাচ পাতানোর অভিযোগে গত কিছুদিনে ভিডিওসহ অনেক প্রমাণ উঠে আসে। মাঠ থেকেই এ নিয়ে প্রতিবাদ পর্যন্ত করেছে ক্রিকেটাররা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত সপ্তাহে তৃতীয় বিভাগের এক ম্যাচে আম্পায়ারের পক্ষপাতদুষ্ট আম্পায়ারিংয়ের প্রতিবাদে এক দল অভিনব উপায়ে প্রতিবাদ জানায়। খেলা শেষে এক দলের ক্রিকেটাররা জোট হয়ে আম্পায়ারকে রীতিমত ভৎসনা পর্যন্ত করেন। কেউ কেউ সে দৃশ্য মোবাইল ক্যামেরায় ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপলোড করলে তা রীতিমত ভাইরাল হয়ে যায়। সেই ভিডিওর রেশ কাটতে না কাটতেই এলো সিসিডিএম’র এমন ঘোষণা।

গত ২ ডিসেম্বর সিসিডিএমের সদস্য সচিব আলী হাসান স্বাক্ষরিত মেমোতে লেখা হয়েছে, ‘সিসিডিএম ও বিসিবি সিদ্ধান্ত নিয়েছে, ঢাকা প্রথম বিভাগ ও তৃতীয় বিভাগের সূচি অনুযায়ী যে ম্যাচ আছে সেখানে কোনো খেলোয়াড়, কোচ, অফিসিয়ালস, টিম বয় ও অন্যান্য স্টাফ, যারা ম্যাচ চলাকালে মাঠে থাকেন তারা কেউ মোবাইল ফোন বা কোনো ধরণের ইলেকট্রনিকস ডিভাইস নিতে পারবেন না।’

এমন ঘোষণা ম্যাচের দুর্নীতি কতটা রুখতে পারে সেটাই এখন দেখার বিষয়।