৭, ডিসেম্বর, ২০১৯, শনিবার | | ৯ রবিউস সানি ১৪৪১

বুয়েটে র‍্যাগিং ও রাজনীতিতে বন্ধ ঘোষণা

আপডেট: December 3, 2019

বুয়েটে র‍্যাগিং ও রাজনীতিতে বন্ধ ঘোষণা

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) র‍্যাগিং ও ছাত্র রাজনীতিতে জড়িত থাকলে তাকে বহিষ্কার করা হবে।

মঙ্গলবার রাতে বুয়েটের নিজস্ব ওয়েবসাইটে ছাত্রকল্যাণ পরিদফতরের পরিচালক স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

১৪ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের তিনদফা দাবির পরিপ্রেক্ষিতে, সর্বশেষ তিন নম্বর দাবি মেনে নিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করলো বুয়েট।

তাদের দাবি তিনটি ছিল:

১.চার্জশিটের ভিত্তিতে অভিযুক্তদের স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা।

২.আহসানউল্লাহ, তিতুমীর ও সোহরাওয়ার্দী হলের র‍্যাগের ঘটনায় অভিযুক্তদের অপরাধের মাত্রা অনুযায়ী শাস্তি দেয়া।

৩.সাংগঠনিক ছাত্ররাজনীতি এবং র‍্যাগের জন্য সুস্পষ্টভাবে বিভিন্ন ধাপে ভাগ করে শাস্তির নীতিমালা করা এবং নীতিমালাগুলো বুয়েটের অ্যাকাডেমিক কাউন্সিল এবং সিন্ডিকেট থেকে অনুমোদন করে অর্ডিন্যান্সে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য পরবর্তী ধাপগুলোতে প্রেরণ করা।

এর আগে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ১ নম্বর দাবি মেনে ২১ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) বুয়েট ছাত্র আবরার হত্যা ঘটনায় চার্জশিটভুক্ত ২৫জন-সহ ২৬ জনকে আজীবন বহিষ্কার করে প্রজ্ঞাপন জারি করে বুয়েট। এছাড়া, শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে আরো জনকে বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি প্রদান করা হয়।

অন্যদিকে শিক্ষার্থীদের ২ নম্বর দাবি মেনে, ২৮ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) র‍্যাগিং এ অভিযুক্ত বুয়েটের সোহরাওয়ার্দী ও আহসানউল্লাহ হলের আরো ২৬ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়। এদের মধ্যে ৯ জনকে আজীবন ও ১৭ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার করা হয়।

এছাড়া, আহসানউল্লাহ হলের ৪ জন শিক্ষার্থীকে ভবিষ্যতে র‍্যাগিং এ না জড়ানোর জন্য সতর্কীকরণ নোটিশ প্রদান করা হয়।