১৩, ডিসেম্বর, ২০১৯, শুক্রবার | | ১৫ রবিউস সানি ১৪৪১

পৃথিবীতে কোন ধর্মের অনুসারী কতো

আপডেট: December 3, 2019

পৃথিবীতে কোন ধর্মের অনুসারী কতো

সারা বিশ্বে মোট কত কয়টি ধর্ম রয়েছে তা এখনও পর্যন্ত নির্দিষ্ট করে জানা যায়নি। তবে অনুমান করা হয় সারা বিশ্বে মোট ধর্মের সংখ্যা প্রায় ৪৩০০ টি। ধর্ম বিষয়টি নির্ভর করে মানুষের বিশ্বাসের উপর। সারা বিশ্বে কোন ধর্মের কত জন লোক বাস করে ব্যাপারটা জানা খুবই কঠিন। তবুও অনুসারীর দিক দিয়ে বর্তমান বিশ্বের প্রধান ১০টি ধর্ম সম্পর্কে আজ পাঠকদের জানানো হল__

১) খ্রিস্টান ধর্ম

যিশুখ্রিস্টের জীবন ও শিক্ষাকে কেন্দ্র করে বিকশিত হয়েছে খ্রিস্টধর্ম। খ্রিস্ট ধর্মাবলম্বীরা বিশ্বাস করে, যিশু খ্রিস্ট ঈশ্বরের পুত্র এবং তিনি মানবজাতির ত্রাণকর্তা। পৃথিবীর খ্রিস্টধর্মের অনুসারীর সংখ্যা প্রায় ২৪০ কোটি। এই সংখ্যা সারা বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ৩৩ শতাংশ। খ্রিস্টানদের প্রধান ধর্মগ্রন্থ বাইবেল।

২) ইসলাম ধর্ম

আল্লাহ ছাড়া কোনো উপাস্য নেই, মুহাম্মদ (সা.) তার প্রেরিত রাসুল- এটি ইসলাম ধর্মের মূল বিশ্বাস। ইসলাম হলো বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্ম। এ ধর্মের অনুসারী বর্তমানে পৃথিবীতে ১৮০ কোটি। সারা বিশ্বের মোট জনসংখ্যা ২৪.১ শতাংশ। তবে পৃথিবীর দ্রুত প্রসারমাণ ধর্ম ইসলাম। সাম্প্রতিক অনেক গবেষণায় বলা হচ্ছে, খ্রিস্ট অধ্যুষিত ইউরোপ অর্ধশতাব্দীকাল পর মুসলিমপ্রধান অঞ্চলে পরিণত হতে পারে। বর্তমানে পৃথিবীর ৫০টি দেশ মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ।

৩) নাস্তিক্যবাদ

নাস্তিক্যবাদ কোন ধর্ম নয়, এটি একটি দর্শনের নাম যাতে ঈশ্বর বা স্রষ্টার অস্তিত্বকে স্বীকার করা হয় না। এরা ঈশ্বর বা সৃষ্টিকর্তার অস্তিত্বকে অস্বীকার করেন। সারা বিশ্বে ধর্মনিরপেক্ষ অর্থাৎ নাস্তিক লোকের সংখ্যা প্রায় ১২০ কোটি। পৃথিবীর মোট জনসংখ্যা ১৬ শতাংশ। দিনদিন মুক্ত চিন্তা, সংশয়বাদী চিন্তাধারা এবং ধর্মসমূহের সমালোচনা বৃদ্ধির সাথে সাথে নাস্তিক্যবাদেরও প্রসার ঘটছে।

৪) হিন্দু ধর্ম

পৃথিবীর চতুর্থ বৃহৎ ধর্ম হিন্দু বা সনাতন ধর্ম। এর অনুসারীর সংখ্যা প্রায় ১২০ কোটি। যা সারা বিশ্বে মোট জনসংখ্যা প্রায় ১৫ শতাংশ। হিন্দু ধর্মের অনুসারীরা প্রায় সবাই ভারতসহ দক্ষিণ এশিয়ায় বসবাস করে। হাজার বছরের প্রাচীন এই ধর্মের সংগঠিত ও সমন্বিত যাত্রা শুরু হয় খ্রিস্টপূর্ব ৫০০ বছর আগে।

৫) বৌদ্ধ ধর্ম

বিশ্বের পঞ্চম বৃহত্তম ধর্ম হল বৌদ্ধ ধর্ম। সারা বিশ্বে বৌদ্ধ ধর্মের মানুষের সংখ্যা ৫২ কোটি। যা সারা বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ৭ শতাংশ। ভারতবর্ষের একজন সাধক পুরুষ গৌতম বুদ্ধ এই ধর্মের প্রবর্তক। তার প্রচারিত বিশ্বাস ও জীবনদর্শনই বৌদ্ধ ধর্মের ভিত্তি।

৬) হান ধর্ম

জনসংখ্যায় পৃথিবীর সবচেয়ে বড় দেশ চীনের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় সম্প্রদায় হলো হানজু বা হান সম্প্রদায়। তারা চীনা লোকধর্ম বা হান ধর্মে বিশ্বাসী। পঞ্চম বৃহৎ এই ধর্মকে অনেকে হান জাতি-গোষ্ঠীর ঐতিহ্যের পরিবর্তিত সংস্করণ বলে থাকে। বর্তমানে এই ধর্মের অনুসারী ৪০ কোটির কাছাকাছি। যা সারা বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ৫.৫০ শতাংশ।

৭) শিখ ধর্ম

অনুসারী বিবেচনায় শিখ ধর্মের অবস্থান সপ্তম। বিশ্বজুড়ে আনুমানিক তিন কোটি মানুষ শিখ ধর্মে বিশ্বাস করে। যা সারা বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ০.৩২ শতাংশ। একেশ্বরবাদে বিশ্বাসী এই ধর্মানুসারীদের নেতাকে বলা হয় গুরু। শিখ শব্দটির অর্থই শিষ্য।

৮) ইহুদি ধর্ম

অনুসারীর সংখ্যা বিবেচনায় বিশ্বের অষ্টম বৃহৎ ধর্ম ইহুদি। এই ধর্মের অনুসারীর সংখ্যা এক কোটির কিছুটা বেশি, যার ৪৩ শতাংশই ইসরায়েলে বসবাস করে। যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় বাস করে আরো ৪৩ শতাংশ ইহুদি। বাকিরা লাতিন আমেরিকা, ইউরোপ, আফ্রিকা ও এশিয়ায় বসবাস করে।

৯) বাহাই ধর্ম

বাহাই ধর্মাবলম্বীরা পৃথিবীর অষ্টম বৃহৎ ধর্মীয় জনগোষ্ঠী। ঊনবিংশ শতাব্দীতে মির্জা হুসাইন আলী তথা বাহাউল্লাহ তৎকালীন পারস্যে (বর্তমান ইরান) এই ধর্মের প্রচার করেন। অনেকেই একে ধর্ম না বলে একটি বিশেষ বিশ্বাস হিসেবেও উল্লেখ করেন। ‘কিতাবুল আকদাস’ এই ধর্মের পবিত্র গ্রন্থ। মানবজাতির ঐক্য ও মেলবন্ধনই এই ধর্মের মূল লক্ষ্য। বিশ্বের দুই শরও বেশি দেশে ৭০ লাখের বেশি মানুষ বাহাই মতবাদে বিশ্বাস করে।

১০) জৈন ধর্ম

সংস্কৃত শব্দ ‘জৈন’ অর্থ বিজয়ী। জৈন ধর্মের মূল বিশ্বাস হলো, পৃথিবীতে ২৪ জন ‘তীর্থঙ্কর’ বা বিজয়ী মহাপুরুষের আগমন ঘটেছিল, যারা নিজ নিজ সময়ে মানবজাতির ত্রাণকর্তা ও শিক্ষক ছিলেন। এই ২৪ জনের মধ্যে সর্বপ্রথম পৃথিবীতে এসেছিলেন ঋষভ, যার আগমন ঘটেছিল লাখ লাখ বছর আগে। সর্বশেষ ২৪তম তীর্থঙ্কর মহাবীরের আগমন ঘটে খ্রিস্টীয় পঞ্চম শতকে। এটি একটি ভারতীয় ধর্ম