৫, ডিসেম্বর, ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ৭ রবিউস সানি ১৪৪১

কলাপাড়ায় মাদরাসাছাত্রীকে যৌন নিপীড়ন, আটক ৪

আপডেট: December 3, 2019

কলাপাড়ায় মাদরাসাছাত্রীকে যৌন নিপীড়ন, আটক ৪

কলাপাড়ায় নবম শ্রেণির এক মাদরাসাছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে চারজনকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার নীলগঞ্জ ইউপির উমেদপুর স্ট্যান্ড থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটকরা হলেন-ওই ইউপির কুমিরমারা গ্রামের সরোয়ার হোসেন, নোমান গাজী, হাসান গাজী ও নাজমুল।

মামলার তথ্যানুযায়ী, দীর্ঘদিন ধরে এক ছাত্রীকে মাদরাসায় আসা-যাওয়ার সময় কুপ্রস্তাব দিতো স্থানীয় মামুন মিয়া। বিষয়টি ওই ছাত্রীর বাবা মাদরাসার প্রিন্সিপালসহ স্থানীয়দের অবহিত করেন। রোববার পরীক্ষায় অংশ নিতে ছাত্রী বাড়ি থেকে বের হলেই পথের মধ্যে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করে মামুন। আবার পরীক্ষা শেষে বাড়ি ফেরার পথে মামুনসহ তার সহযোগীরা ছাত্রীর ওপর যৌন নির্যাতন চালায়। পরে বিকেলে স্থানীয়রা তাদের আটক করে পুলিশে খবর দেয়।

দৌলতপুর ছালেহিয়া ইসলামিয়া আলিম মাদরাসার অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) মাওলানা মোস্তাফিজুর রহমান জানান, ছাত্রীকে যৌন নির্যাতনের ঘটনায় মামুন, জোবায়ের ও মিরাজকে প্রথমে আটক করে ছাত্ররা। তবে যে ছেলেরা এখন থানায় আটক রয়েছে, তারা মামুন ও মিরাজকে ছাড়াতে এসেছিল। ভুক্তভোগী ছাত্রী ও মামুন একই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী বলে জানান প্রিন্সিপাল।

এদিকে ওই প্রতিষ্ঠানের প্রধান উপদেষ্টা নূরই আলম আজাদ জানান, এ ঘটনায় জড়িত শিক্ষার্থীদের প্রাথমিকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।

কলাপাড়া থানার ওসি মনিরুল ইসলাম জানান, স্থানীয়রা যৌন নিপীড়নের সঙ্গে জড়িত চারজনকে আটক করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে। পরে ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। সেই মামলায় চারজনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।