৫, ডিসেম্বর, ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ৭ রবিউস সানি ১৪৪১

বয়স চুরি করে নিষিদ্ধ হলেন ক্রিকেটার

আপডেট: December 2, 2019

বয়স চুরি করে নিষিদ্ধ হলেন ক্রিকেটার

বয়স চুরি ঠেকাতে সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নিচ্ছে ভারত। ফাইল ছবিঅনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটে বয়স চুরি করে ধরা পড়েছেন এক ভারতীয় ক্রিকেটার। প্রিন্স রাম নিবাস যাদব নামের এই ক্রিকেটারকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে বিসিসিআই।

দিল্লি ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটে ২০১৮-১৯, ২০১৯-২০ টানা দুই মৌসুমেই খেলার জন্য নথিভুক্ত হয়েছিলেন প্রিন্স রাম নিবাস যাদব। তাঁর বয়স ১৮, এমনটাই জানত সবাই। কারণ জন্ম নিবন্ধনের কাগজপত্রে তার জন্ম তারিখ দেখানো হয়েছিল ২০০১ সালের ১২ ডিসেম্বর।

কিন্তু অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের জন্য দল ঘোষণা করার সময় তথ্য-উপাত্তের সত্যতা যাচাই করতে গিয়ে কেঁচো খুঁড়তে সাপ বের করে ফেলে বিসিসিআই। জানা যায়, স্কুল সার্টিফিকেটে প্রিন্স রাম নিবাস যাদবের জন্ম তারিখে দেওয়া আছে ১৯৯৬ সালের ১০ জুন। একদম পাঁচ বছরের কারচুপি!

বয়স কারচুপির অভিযোগে প্রিন্স রাম নিবাস যাদবকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। এই নিষেধাজ্ঞার ফলে দিল্লির এই ক্রিকেটার ২০২০-২১ ও ২০২১-২২ মৌসুমে বিসিসিআই আয়োজিত ঘরোয়া ক্রিকেট টুর্নামেন্টগুলো খেলতে পারবেন না।

তবে নিষেধাজ্ঞা উঠে গেলে ক্রিকেট টুর্নামেন্টগুলোতে অংশ নিতে আর সমস্যা থাকবে না তাঁর। ঘটনায় স্বাভাবিকভাবে দিল্লি ক্রিকেট বোর্ডের (ডিডিসিএ) ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে।

ডিডিসিএ’র এক কর্মকর্তা ব্যাপারটা নিশ্চিত করেছেন, ‘হ্যাঁ, ব্যাপারটা সত্য। আমরা বিসিসিআই এর কাছ থেকে নোটিশ পেয়েছি। প্রিন্স যাদব নামের ক্রিকেটারের বয়স চুরির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বিসিসিআই খুঁজে পেয়েছে এই ছেলে ক্লাস টেন পাশ করেছে ২০১২ সালে, জন্মেছে ১৯৯৬ সালের ১০ জুনে।’ বয়স চুরি করার জন্য প্রিন্স যাদব একাধিক নকল জন্মসনদ বানিয়েছে, এমন প্রমাণও পেয়েছে বিসিসিআই।

উপমহাদেশে বয়স চুরি প্রায় নিয়মিত ঘটনা। কিছুদিন আগেই শহীদ আফ্রিদি কমপক্ষে তিন বছর বয়স চুরির কথা স্বীকার করেছেন। সর্বকনিষ্ঠ ক্রিকেটার হিসেবে টেস্ট খেলার রেকর্ড গড়া হাসান রাজাও বয়স চুরির কথা স্বীকার করেছেন।

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ায় টেস্ট অভিষিক্ত ১৬ বছরের নাসিম শাহর বয়স নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করেছেন অনেকেই। দিল্লি দলেও দুই ক্রিকেটারের বয়স তদন্তের মুখে বলে জানা গেছে।