১২, ডিসেম্বর, ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ১৪ রবিউস সানি ১৪৪১

চেয়ারম্যান কর্তৃক জোরপূর্বক ডিভোর্সের মাধ্যমে ঘুষ বানিজ্য; ভুক্তভোগী শতাধিক পরিবার!

আপডেট: November 20, 2019

চেয়ারম্যান কর্তৃক জোরপূর্বক ডিভোর্সের মাধ্যমে ঘুষ বানিজ্য; ভুক্তভোগী শতাধিক পরিবার!

পারিবারিক কলহ নিয়ে বিচার চাইতে আসলেই ডিভোর্সের মাধ্যমে ঘুষ বানিজ্যের অভিযোগ, ভোলা সদর উপজেলাধীন, রাজাপুর ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান খানের বিরুদ্ধে। উক্ত ইউনিয়নে শতাধিক দাম্পত্য বিচ্ছেদ হয়েছে শুধুমাত্র চেয়ারম্যানের ঘুষ বানিজ্যের কারনে, এমন অভিযোগ এলাকাবাসীর।

সম্প্রতি দরিদ্র জেলে ফিরুজুল ইসলাম-সাথী দম্পতি পারিবারিক কলহের সমাধান চাইতে গেলে উক্ত চেয়ারম্যানের ডিভোর্স বাণিজ্যের শিকার হয়েছেন। ৮ মাসের অন্তসত্তা স্ত্রী সম্পর্কে পরকিয়ার মিথ্যা অপবাদ দিয়ে, ৪ লাখ টাকার বিনিময়ে স্ত্রীকে ডিভোর্স করতে স্বামী ফিরুজুলকে চাপ প্রয়োগ করেন ঘুষখোর এই চেয়ারম্যান। ভুক্তভোগী দম্পতি নিরুপায় হয়ে সংবাদকর্মী ফরিদুল ইসলামের সরনাপন্ন হলে, তিনি এ বিষয়ে একটি সংবাদ প্রকাশ করেন। সংবাদ প্রকাশ করায় হুমকির সম্মুখীন হচ্ছেন সাংবাদিক ফরিদুল ইসলামসহ ভুক্তভোগী পরিবার। খবর প্রকাশের পর ভুক্তভোগী দম্পতিতে আটকে রেখে, ভয়ভীতি প্রদর্শন করে, জোরপূর্বক বক্তব্য নেয়ার অভিযোগ উঠেছে উক্ত দুর্নীতিবাজ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে।

অনুসন্ধানে জানা যায়, দুস্থ মানুষের জন্য বিনামূল্যে বরাদ্ধকৃত সরকারি টিউবওয়েল ও আশ্রায়ন প্রকল্পের ঘর টাকার বিনিময়ে বিক্রিসহ অসংখ্য অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগ উক্ত চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে।