২১, নভেম্বর, ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৭ দফা দাবিতে বিক্ষোভ-সমাবেশ

আপডেট: November 6, 2019

গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৭ দফা দাবিতে বিক্ষোভ-সমাবেশ

এম শিমুল খান, গোপালগঞ্জ : বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা বাড়ানোসহ ১৭ দফা দাবিতে বিক্ষোভ ও সমাবেশ করেছেন গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) সাধারন শিক্ষার্থীরা। বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে এ বিক্ষোভ-সমাবেশ করা হয়।

এ সময় শিক্ষার্থীরা তাদের বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা বাড়ানোর দাবিতে নানা স্লোগান দেন। পরে সাধারণ শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে ১৭ দফা দাবি সম্বলিত একটি স্মারক লিপি দেওয়া হয়।

১৭ দফা দাবি গুলো হলো বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল, শহীদ মিনার এবং প্রধান ফটকের নির্মাণ কাজ অতি শিগগিরই শুরু করতে হবে, আবাসিক হলে সিট প্রতি ভাড়া ১৫০ টাকা ও গণরুমের ভাড়া ২৫ টাকা করতে হবে, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি ফি সর্বোচ্চ ১২ হাজার টাকা ও সেমিস্টার ফি দুই হাজার টাকা এবং উন্নয়ন ফি বাদ দিতে হবে, ক্লাসে উপস্থিতি ৫০শতাংশ করতে হবে এবং ইমপুরুভমেন্ট সিস্টেম চালু করতে হবে, প্রতি সেমিস্টারে বেতন বাবদ ১২শ’ টাকার পরিবর্তে ৬শ’ টাকা করতে হবে, শুধুমাত্র বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস নয়, ক্যাম্পাসের বাইরেও শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার দায়িত্ব বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকেই নিতে হবে, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় (২০১৯-২১ শিক্ষাবর্ষের থেকে) সব বিভাগে সর্বোচ্চ আসন ৫০ করতে হবে, শিগগিরই বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশুদ্ধ খাবার পানির ব্যবস্থা এবং ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে পানি পানের সু-ব্যবস্থা থাকতে হবে, বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়তন ৫৫ একর থেকে বাড়িয়ে ১৫০ একর করতে হবে।

শিক্ষার্থীদের প্রতি শিক্ষকদের ব্যক্তিগত ক্ষোভ যেন একাডেমিক প্রভাব না ফেলে তার জন্য শিক্ষকদেরও আইনের আওতায় আনতে হবে, সেমিস্টার ফি প্রতি ক্রেডিট ১শ’ টাকার পরিবর্তে ৫০ টাকা করতে হবে, যে সব বিভাগে কম্পিউটার নাই, তারা প্রতি সেমিস্টারে কম্পিউটার বাবদ ২৫০ টাকা দেবে না, যেহেতু বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র সংসদ নাই, সেহেতু তারা ছাত্র সংসদ ফি দেবে না এবং পূর্বের টাকার হিসাব দিতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ে স্টুডেন্ট কমন রুম নাই, শিক্ষার্থীরা কমন রুম বাবদ টাকা দেবে না এবং আগের টাকার হিসাব দিতে হবে, ক্যাফেটরিয়া, অডিটরিয়াম, অ্যাম্ফিথিয়েটারের নির্মাণ কাজ দ্রুত শুরু করতে হবে, বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব চিকিৎসা ভবন করতে হবে, চিকিৎসা ফি ২২৫ টাকার পরিবর্তে ১শ’ টাকা ও প্রতি সেমিস্টারে বাস ভাড়া ৩শ’ টাকা করতে হবে এবং ছাত্র কল্যাণ বাবদ ৫০ টাকা করতে হবে।

১৭ দফা দাবি সম্বলিত স্মারকলিপিটি রেজিষ্ট্রারের পক্ষে প্রক্টর ড. মো: রাজিউর রহমান গ্রহণ করেন।
এ ব্যাপারে প্রক্টর ড. রাজিউর রহমান জানান, শিক্ষার্থীদের ১৭ দফা দাবি সম্বলিত স্মারক লিপি তিনি পেয়েছেন। তাদের সব দাবি বর্তমান ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য্যরে (ভিসি) পক্ষে পূরণ করা সম্ভব না। নতুন ভিসি নিয়োগ না হওয়া পর্যন্ত তাদের সব দাবি পূরণ করা সম্ভব নয়। তবে তাদের বেশ কিছু দাবি যৌক্তিক বলে তিনি স্বীকার করেন।