২১, নভেম্বর, ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

ঝালকাঠিতে আওয়ামী লীগে হাইব্রিড বা অনুপ্রবেশকারী চেয়ারম্যান মেম্বার সহ ১৫ জনের তালিকা প্রকাশ

আপডেট: November 3, 2019

ঝালকাঠিতে আওয়ামী লীগে হাইব্রিড বা অনুপ্রবেশকারী চেয়ারম্যান মেম্বার সহ ১৫ জনের তালিকা প্রকাশ

ঝালকাঠি প্রতিনিধি: ঝালকাঠিতে হাইব্রিড বা অনুপ্রবেশকারী ১৫ জনের তালিকা প্রকাশ। এরমধ্যে তিনজন রয়েছে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান,সাত জন রয়েছে ইউনিয়ন মেম্বার। কেওড়া ইউনিয়নে রয়েছে চার মেম্বারের নাম। নাচনমহল ইউনিয়নের তিন মেম্বার এর নাম। বাকি পাঁচজন বিভিন্ন ইউনিয়নের আওয়ামী কর্মী। কেউ করত বিএনপি কেহ জামাত, আওয়ামী সরকার ক্ষমতায় আসার পরে এরা দল বদল করে আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ পদ দখল করে রয়েছে। জন্ম থেকে যারা আওয়ামী লীগ দল করছে তারা কিছুই পাইনি। তাদের কোনঠাসা করে রাখা হয়েছে বলে একাধিক ত্যাগী আওয়ামীলীগ কর্মী জানিয়েছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক আওয়ামী লীগ কর্মী জানান ,আমরা ছোটবেলা থেকে দল করে কিছুই পাইনি। যারা নব্য হাইব্রিড আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে টাকার কুমির হয়েছে। তাদের কাছে আমাদের কোন মূল্য নেই। আমরা দলকে ভালোবেসে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দল করি। আমরা অনুপ্রবেশকারীর দলের নয়। সারাজীবন দল করে আমরা সঠিক মূল্যায়ন পাইনি। যেদিকে তাকাই দেখা যায় অনুপ্রবেশকারী সংখ্যা বেশি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমাদের অনুরোধ এই অনুপ্রবেশকারীদের হটিয়ে জন্ম থেকে যারা আওয়ামী লীগ দলকে ভালোবাসে দলের দুঃসময়ে মাঠে ছিল তাদের সঠিকভাবে তদন্ত করে মূল্যায়ন করার জন্য অনুরোধ করছি।

অনুপ্রবেশকারী তালিকা:

১)এইচ এম আকতারুজ্জামান বাচ্চু-বর্তমানে ৩ নং কুলকাঠি ইউপি চেয়ারম্যান,বর্তমানে নলছিটি উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সাংগঠনিক সম্পাদক।পুর্বে ছিলেন বাংলাদেশ ছাত্র শিবির,পৌর সভাপতি,নলছিটি এবং পরবর্তী তে জামাত ইসলাম এর সাথী সদস্য,ও ফ্রিডম পার্টির উপজেলা সভাপতি
২)এ কে এম জাকির হোসেন-বর্তমানে উপজেলা আওয়ামীলীগ এর যুগ্ন সাধারন সম্পাদক ও ৮ নং গাবখান আওয়ামীলীগ এর সভাপতি। এবং ৮ নং ধানশিরি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ।পুর্বে ঝালকাঠি সদর উপজেলা বিএনপির যুগ্ন সাধারন সম্পাদক ও ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ছিলেন।
৩)এমানুল হক শাহীন-বর্তমানে ২ নং মগড় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সেক্রেটারি এবং ২ নং মগড় এর ইউপি চেয়ারম্যান।পুর্বে জাতীয় পার্টির ইউনিয়ন সভাপতি ছিলেন।
৩)শাহ আলম মীর বহর-বর্তমানে ৪ নং কেওড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলগের সেক্রেটারি,এবং ৪ নং কেওড়া ইউনিয়নের বর্তমান ইউপি সদস্য,পুর্বে ছিলেন বিএনপি কর্মী।
৪)কামাল হোসেন মৃধা-বর্তমানে ৪ নং কেওড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ এর সাধারন সম্পাদক।এবং ৪ নং কেওরা ইউনিয়ন আওয়ামীলগের ৭ নং ওয়ার্ডের মেম্বর নির্বাচিত।পুর্বে ছিলেন ৪ নং কেওড়া বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক।
৫)মাসুম হাওলাদার-বর্তমানে কেওড়া ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগ এর সাধারন সম্পাদক, এবং ৫ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য হিসেবে নির্বাচিত।পুর্বে ছিলেন কেওড়া ইউনিয়ন বিএনপির ৫ নং ওয়ার্ডের সাংগঠনিক সম্পাদক।
৬)জাকির হোসেন তালুকদার-বর্তমানে ৪ নং কেওড়া আওয়ামীলীগ এর গ্রাম বিষয়ক সম্পাদক,এবং ৩ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য।পুর্বে ছিলেন ৩ নং ওয়ার্ডের বিএনপির সাধারন সম্পাদক।
৮)মিজান খলিফা-গ্রাম:খাগড়াখানা,বর্তমানে আওয়ামী লীগ কর্মী,পুর্বে ছিলেন ওয়ার্ড যুবদলেন সাধারন সম্পাদক।
৯)আল আমিন হাওলাদার- গ্রাম:হারদল,বর্তমানে আওয়ামীলীগ কর্মী।পুর্বে ছিলেন স্বেচ্ছাসেবক দলের ইউনিয়ন সাধারন সম্পাদক।
১০)এম এ নান্না মিয়া- গ্রাম গোবিন্দপুর, বর্তমানে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ এর সাংগঠনিক সম্পাদক।পুর্বে বিএনপির ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি।
১১)মাহবুব আলম আকন- গ্রাম:গোবিন্দপুর,বর্তমানে আওয়ামীলগের ইউনিয়ন কমিটির সদস্য ও ইউপি সদস্য।পুর্বে ছিলেন বিএনপির কর্মী।
১২)আনোয়ার হোসেন- গ্রাম:কুড়লিয়া,বর্তমানে ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি ও নির্বাচিত নাচনমহল ইউপি সদস্য।সাবেক বিএনপির যুবদলের সদস্য।
১৩)মামুন হাওলাদার- গ্রাম: ডেবরা বর্তমানে ইউনিয়ন যুবলীগ সদস্য,পুর্বে জামায়েত ইসলামী সদস্য।
১৪)বশির হাওলাদার-গ্রাম:ডেবরা,বর্তমানে আওয়ামীলীগ কর্মী পুর্বে ছিলেন বিএন পির কর্মী
১৫)জলিল হাওলাদার- গ্রাম:ডেবরা,বর্তমানে আওয়ামীলীগ কর্মী নির্বাচিত নাচনমহল ইউপি সদস্য,পুর্বে বিএনপির কর্মী ছিলেন তিনজন চেয়ারম্যান :জাকির হোসেন, এনামুল হক শাহীন, আক্তারুজ্জামান বাচ্চু