খরুলিয়ার আবু বক্কর প্রকাশ মাস্তাইন্না আবারো সক্রিয় প্রবাসী শফিকের জমি দখলের পায়তারা

সমগ্র বাংলা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ এক সময়ের কক্সবাজার জেলা কাঁপানো সন্ত্রাসী ও কক্সবাজার সদরের খরুলিয়া এলাকার মাষ্টারবাড়ি পাড়ার আবু বক্কর(৫০) আবারো সন্ত্রাসী কর্মকান্ড শুরু করেছে বলে গুরুতর অভিযোগ উঠেছে।

আবু বক্কর ও তার ছেলে মেয়েদেরকে ব্যবহার করে এলাকার শফিকুল ইসলাম নামের জৈনক এক প্রবাসীর জমি দখল করার পায়তারা করে যাচ্ছে বলে জানা যায়,
প্রবাসি শফিকুল ইসলাম নিজ এলাকা খরুলিয়ায় সৌদি উপার্জিত টাকা দিয়ে কিছু জমি ক্রয় করে, এবং তিনি দেশে আসলে নিয়মিত এলাকার গরীব অসহায়দের সাহায্য করে আসছিল, প্রবাসি শফিক দেশে না থাকার সুযোগ নিয়ে আবু বক্কর, তার ছেলে আসাব উদ্দিন সহ দলবল নিয়ে ক্রয়কৃত জায়গা দখলের অপচেষ্টা চালিয়ে আসছে।

আবু বক্কর ও তার ছেলে আসাব উদ্দিনের সন্ত্রাসী কার্যকলাপ দেখে গত ৪এপ্রিল শফিকুল ইসলাম লিখিত অভিযোগ করে কক্সবাজার সদর থানায়।

কক্সবাজার সদর থানা অভিযোগটি আমলে নিয়ে দুপক্ষের সাথে কথা বলতে গত ১০ এপ্রিল বিকাল চারটায় থানায় আবু বক্কর ও তার সহযোগীদের নোটিশ দিয়ে ডাকলেও তারা সে কথার অমান্য করে প্রবাসি শফিকুল ইসলাম জায়গা দখলের অপচেষ্টা চালিয়েছে আসছিল এরই ধারাবাহিকতায় গত ১৭এপ্রিল আবু বক্কর ও তার ছেলে আবাস উদ্দিনের সহযোগী সহ শফিকুর রহমানের জায়গায় তান্ডবও চালিয়ে বাড়িঘর ভাংচুর ফলজও বনজ গাছ কেটে ফেলে বলে জানা যায়।

এহেন সন্ত্রাসী করে জমি দখলের চেষ্টা করলে প্রবাসি শফিকুল ইসলামের ভাই আবদুর রহিম পিতা আবু বক্কর ছিদ্দিক ঘাট পাড়া খরুলিয়া বাদী হয়ে গত ১৭ এপ্রিল আবাস উদ্দিন (২৫) পিতা আবু বক্কর সাং মাষ্টার বাড়ি খরুলিয়া,রফিকুল ইসলাম (৪৫) পিতা মৃত বদিউল আলমমুন্সীরবিল খরুলিয়া আবু বক্কর (৫০) পিতাআবদুল হাসিম, খরুলিয়া, সাজেদা বেগম( ৪২) স্বামী আবু বক্কর সাং মাষ্টারবাড়ি, খরুলিয়া, সাবেকুন্নাহার (২১) পিতা আবু বক্কর সাংঐ সাদিয়া আক্তার (২৩) পিতা আবু বক্কর সাং ঐ লুৎফা আক্তার( ২০) পিতা আবু বক্কর সাং ঐ আসামী করে কক্সবাজার সদর থানায় মামলা দায়ের করে যার মামলা নং৮৯/১৯ এদিকে শফিকের ছোট ভাই আবদুর রহিম জানান আমার বড়ভাই দেশে না থাকার সুযোগ নিয়ে তার ক্রয়কৃত জায়গা দখল করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি আরো বলেন এই পরিবার এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকান্ড এহেন চালিয়ে আসছে। তাদের প্রতিহত করতে আমরা আইনের আশ্রয় নিয়েছি আশা করি আইন শৃঙ্খলাবাহিনী সঠিক সময়ে তাদের আইনের আওতায় আনবেন। এদিকে প্রবাসি শফিকুল ইসলাম জানান আবু বক্কর এক সময়ের শীর্ষ সন্ত্রাসী ছিলেন এমনও নজির আছে অস্ত্র সহ পুলিশের কাছে ধরা পড়েছেন এবং তার কয়েকটা অস্ত্র মামলা ও সে আমলে ছিল। তার অতীত সন্ত্রাসী জীবন এখন আবারো জোয়ান ছেলে আবাস উদ্দিন ও তার মেয়েদের কে দিয়ে চালানো চেষ্টা করছে সে সহ তার ছেলে মেয়েদের ব্যবহার করে আমার কেনা জমি দখল করতে নেমেছে এবং গত ১৭ এপ্রিল আমার বাড়ির যে ক্ষয়ক্ষতি করেছে তা বলার অপেক্ষা রাখেনা।

তিনি আরো বলেন আমি একজন প্রবাসী আমাকে সমাজে সম্মানহানি করতে তারা বিভিন্ন ধরনের কাজ করে যাচ্ছে আমাকে প্রাননাশের হুমকি দিয়েছে, আবু বক্কর তার মেয়েদের দিয়ে নারী নির্যাতন মামলা করবে বলে হুমকী দেন। এদিকে আবু বক্কর এর ছেলে আসাব উদ্দিন আমাকে দেশে গেলে প্রানে মেরে ফেলার হুমকী দিয়ে আসছে। তাই আমার হয়ে আমার ছোট ভাই তাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে,আশা করি তাদের গ্রেফতার পূর্বক এই সমস্যার সমাধান হবে।

এলাকাবাসি জানান আবু বক্কর ও তার ছেলে মেয়েরা মিলে শফিকের জমি দখল করতে চাচ্ছে প্রশাসন চাইলে সঠিক বিচার করে শফিকের জমি দখলবাজদের হাত থেকে বাঁচাতে পারে বলে মনে করেন।আরো জানা যায় ২০১৭ সালে আসাব উদ্দিন সহ প্রবাসী শফিকের কাছে ক্রয়কৃত ওয়ারিশদার বলে সব সময় ব্লেকমেইল করে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিতো। এদিকে আবু বক্কর ও তার ছেলের সাথে প্রতিবেদক কথা বলতে খরুলিয়া গেলে তারা কথা বলতে রাজি হননি। এ ব্যাপারে কক্সবাজার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার সাথে ফোনে কথা হলে তিনি জানান মামলা নথিভুক্ত হয়েছে ঘটনার সুষ্ট তদন্ত করা হবে এবং যারা প্রকৃত দোষী তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *