আখাউড়ায় মাদকব্যবসায়ী কর্তৃক সাংবাদিক ও তার পরিবারের উপর সন্ত্রাসী আক্রমণ!

সমগ্র বাংলা

মোঃজুয়েল,আখাউড়া সংবাদদাতা ঃ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলাধীন মোগড়া ইউনিয়নের রাজেন্দ্রপুর গ্রামের শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী হামদু ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী কর্তৃক সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী মোঃসোহাগ মিয়া(সিজান)কে অতর্কিত হামলা চালনা হয়।হামলায় সিজান,সিজানের ছোট ভাই ও তার পিতা আব্দুল জলিল গুরুতর আহত হয়।খবর পেয়ে তাদেরকে আখাউড়া থানা পুলিশের সদস্যরা গিয়ে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেরণ করা হয়।

অবস্থার অবনতি দেখে তাদেরকে জেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্থানান্তরিত করা হয়। উল্লেখ্য গত ৮ আগষ্ট দুপুর ১টার সময় একই এলাকার আউরারচরের জনৈক সিরাজ মোল্লার দোকানে নেক্কারজনক এই ঘটনা ঘটে।এই ঘটনায় সোহাগ মিয়া বাদী হয়ে একটি মামলার অভিযোগ দায়ের করে। অভিযোগসূত্রে জানা যায়, হামদু মিয়া(৪৫), লিটন খন্দকার(৪০), আল আমিন (৩৫)এবং জেবিন মিয়া (২০)কে আসামী করা হয়।হামলায় গুরুতর আহত সাংবাদিক সিজান জানান,আসামীরা দীর্ঘদিন যাবৎ আমাকে ও আমার পরিবারকে হুমকি দিয়ে আসছে। ঐ দিন মাদক মামলায় জেলখেটে আসা চিহ্নিত আসামী হামদুর নেতৃত্বে কিল,ঘুষি,লোহার রড দিয়ে এলোপাথাড়ি বাইড়ায় এবং আমার গলায় চাপিয়া ধরিয়া শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা করে।মারধরে আমার ছোট ভাই সহ আমার বৃদ্ধ পিতা ও গুরুতর আহত হয়।এই ঘটনা নিয়ে বাড়াবাড়ি করলে খুন খারাপি সহ অঘটন ঘটানোর হুমকি দেয়া শুরু করেছে।প্রতিবাদ করায় সাংবাদিকদের দেখে নেয়ার হুমকি দেয় এবং তিরষ্কার করে।

এই ঘটনা শুনে আখাউড়া উপজেলা প্রেসক্লাব এবং মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের সমস্ত সাংবাদিকবৃন্দ তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়েছে। খবর পেয়ে এক দল সাংবাদিক ঘটনাস্থলে গিয়ে জানতে পায় যে আসামীরা দেশীয় অস্ত্র সহ শোডাউন দিচ্ছে সিজানের বাড়িতে আক্রমণ করার জন্য।এ বিষয়ে আখাউড়া থানার ওসি রসুল আহমেদ নিজামী সাংবাদিক সমাজকে বলেন, হামদু মাদক মামলায় কিছুদিন আগে কয়েক মাস জেল খেটে এসেছে।খবর পেয়ে আমি এক বিশাল ফোর্স পাঠিয়েছিলাম। আসামীরা পালিয়ে যায়। মাদক ব্যবসায়ী এবং নেশাখোরদের কোনো ছাড় দেয়া হবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *