হরিপুরে ১৪৪ ধারা জারি, আ’লীগের দুই গ্রুপে সংঘর্সে আহত ৬

রাজনীতি

আশরাফুল আলম, রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও) সংবাদদাতা ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুরে ১৪৪ ধারা জারি করেছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রট আব্দুল করিম।

সূত্রে জানাগেছে, আ’লীগের কমিটিতে নিয়ম বহির্ভূতভাবে সদস্য অন্তর্ভুক্তিকে কেন্দ্র করে আ’লীগের বর্ধিত সভায় দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে আহত হয়েছে ৬ জন।

৯ অক্টোবর বিকালে হরিপুর উপজেলা আ’ লীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে দলীয় নেতাকর্মীদের উশৃংখল পরিস্থিতি সামাল দিতে উপজেলা আ’লীগের কার্যালয় ও তার আশপাশের বাজারগুলোতে ১৪৪ ধারা জারি করেছে প্রশাসন।

জানা যায়,বুধবার সন্ধ্যা ৬টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল করিম এ আদেশ জারি করেন। তিনি মুঠোফোনে বলেন, উত্তেজিত পরিস্থিতি সামাল দিতে এ আদেশ জারি করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত এ আদেশ বলবৎ থাকবে। জানা গেছে, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের সময় হরিপুর উপজেলা আ. লীগের কমিটিতে থেকে ১১ জনকে বহিষ্কার করা হয়। আবার গতকাল শুন্য পদগুলোতে নিয়ম বহির্ভূতভাবে ১৭ জনকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এ নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া শুরু হয় দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে।

আ’লীগের কয়েকজন সদস্য জানান, গতকাল নতুন সদস্যদের অন্তর্ভুক্তি করার পর ‘হরিপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ’ নামে একটি ফেসবুক আইডিতে ব্যাপক প্রচারণা চালানো হয়। এঘটনায় বিক্ষুব্ধ হয়েছে অন্যান্য নেতাকর্মীরা। হরিপুর উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম রিপন অভিযোগ করে বলেন, কমিটির কাউকে না জানিয়ে ত্যাগী নেতাদের বাদ দিয়ে নতুন ১৭ জন সদস্য অন্তর্ভুক্ত করায় নেতাকর্মীরা বিক্ষুব্ধ হয়। এ সময় দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ বাধলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। দুই গ্রুপের সংঘর্ষে কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হয়ে বর্তমানে হরিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে।

এবিষয়ে হরিপুর উপজেলা ভাইসচেয়ারম্যান আব্দুল কাইম পুষ্প বলেন, “আমাদের ত্যাগী নেতাকর্মীদের বাদ দিয়ে বিএনপি- জামাতের মদতদানকারী লোকদের কাছ থেকে অর্থের বিনিময়ে কমিটিতে শুন্যপদে পুন্যবহাল করাকে কেন্দ্র করে এঘটনা ঘটে।”

অপরদিকে উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের সাঃসম্পাদক জিয়াউল হাসান মুকুল বলেন, “আমরা আ’লীগের বর্ধিত সভা ডেকেছিলাম। উপজেলা নির্বাচনে যারা বিদ্রোহী হিসেবে নির্বাচন করেছে তারাই হঠাৎ অতর্কিত ভাবে লাঠিসোঠা নিয়ে হামলা করে এবং দু’টি মোটরসাইকেল পুঁড়িয়ে দেয়। আমাদের চারজন গরুত্বর আহত। আহতদের একজন ঠাকুরগাঁও ও তিনজন দিনাজপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রেফার্ড করা হয়েছে।”

হরিপুর থানার ওসি আমিরুজ্জামান মুঠোফোনে জানান, “উপজেলা আ’লীগের কমিটি নিয়ে দু’গ্রুপে সংঘর্ষ বাঁধলে কয়েকজন আহত হয় এবং ২টি মোটরসাইকেল পুড়ে যায়, তবে এখন পর্যন্ত থানায় কোন অভিযোগ হয়নি।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *