ফায়ারম্যান সোহেলকে মাশরাফির স্যালুট

জাতীয়

২৮ মার্চ বনানীর এফ আর টাওয়ারে ভয়াবহ আগুন লাগার পর উদ্ধার অভিযানে যোগ দেন ফায়ার সার্ভিসের ফায়ারম্যান সোহেল রানা। আগুন নেভানো ও আটকে পড়া ব্যক্তিদের উদ্ধারে নিজের জীবনকে তুচ্ছ করেন তিনি। এক পর্যায়ে ল্যাডারে আটকে গিয়ে নিজেই গুরুতর আহত হন। তারপর চলেই গেলেন না ফেরার দেশে। গেল ৮ এপ্রিল সিঙ্গাপুরের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা সম্প্রতি তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে স্মরণ করেছেন ফায়ারম্যান সোহেল রানাকে। তিনি সোহেল রানার ছবি সংবলিত ওই পোস্টে লেখেন, আমরা প্রতিনিয়ত গল্পের সুপারহিরোদের নিয়ে কথা বলি, তাদের নিয়ে জমে উঠে আমাদের চায়ের আড্ডা। স্পাইডার ম্যান, সুপারম্যান এরা আমাদের জীবনকে প্রতিনিয়ত প্রভাবিত করে। কিন্তু আমাদের আশেপাশে এমন কত যে সুপারহিরো আছে আমরা জানিও না। তাদের নিয়ে জমে উঠে না আমাদের চায়ের আড্ডা। আমরা স্মরণ করি না তাদের ত্যাগের কথা। আজ এমনি একজন সুপারম্যানের কথা বলব।

তিনি আরও লেখেন, এই সুপারম্যানের নাম হচ্ছে সোহেল রানা। তিনি বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিসের একজন ফায়ারম্যান ছিলেন। গত ২৮ মার্চ বনানীর এফ আর টাওয়ারে অগ্নি নির্বাপণ ও উদ্ধার কাজে অংশ নিয়েছিলেন। মরণের ভয় না করে উদ্ধার করতে গিয়েছিলেন এফ আর বিল্ডিংয়ে আটকে পরা মানুষদের। কিন্তু উদ্ধার কাজ করতে গিয়ে তিনি গুরুতর আহত হন। তাকে চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার বাংলাদেশ সময় রাত ২টা ১৭ মিনিটে তার মৃত্যু হয়। আমরা গভীরভাবে স্মরণ করছি সোহেল রানার মত সকল সুপারম্যানদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *