নববর্ষের প্রথম দিনে ট্রেনে কাটা পড়ে আত্মহত্যার চেষ্টা’ বাঁচাল পুলিশ

সমগ্র বাংলা

কিছুদিন আগে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই হাত ভেঙে গিয়েছিল ইমনের। আর্থিক অসচ্ছলতায় ঠিকমতো চিকিৎসাও করাতে পারছিলেন না তিনি। শেষে নববর্ষের প্রথম দিনে ট্রেনে কাটা পড়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করতে চেয়েছিলেন ওই যুবক। খবর পেয়ে ছুটে যায় থানা-পুলিশ, প্রাণ বাঁচায় যুবকের।

আজ রোববার সকালে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের ভানুগাছ রেলস্টেশন সংলগ্ন কুমড়াকাপন এলাকায় সিলেট-আখাউড়া রেলপথে এ ঘটনা ঘটে। ইমনের পুরো নাম ইমন আহমদ (২২)। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ইমন কমলগঞ্জ পৌরসভা এলাকার বাবুল মিয়ার ছেলে। তিনি একটি বাসের হেলপার ছিলেন। কিছুদিন আগে হাইওয়েতে সড়ক দুর্ঘটনায় তার দুই হাত ভেঙে যায়। দুই হাতে প্লাস্টার করলেও আর্থিক অসচ্ছলতার কারণে সুচিকিৎসা হচ্ছিল না তাঁর। ধীরে ধীরে তাঁর ভাঙা হাতে যন্ত্রণা বাড়ছিল। একপর্যায়ে তিনি আত্মহত্যার চেষ্টা চালান।

কমলগঞ্জ থানা-পুলিশ জানায়, রোববার পয়লা বৈশাখের দিন সকাল সাড়ে ১১টার দিকে স্থানীয়রা খবর দেয় যে, এক যুবক রেললাইনের ওপর শুয়ে আছে। ওই সময় ঢাকা থেকে সিলেটের উদ্দেশে ছেড়ে আসা আন্তনগর পারাবত ট্রেনের জায়গাটি অতিক্রম করার কথা ছিল। স্থানীয়রা রেলপথ থেকে সরে যাওয়ার কথা বললেও ইমন কারও কথাই শুনছিল না। এমন খবর শুনে কমলগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক সুরুজ আলীর নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ইমনকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আরিফুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ছেলেটিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, দুই হাত ভেঙে যাওয়ায় আর্থিক অসচ্ছলতার কারণে সুচিকিৎসা করতে পারছিলেন না। তাই তিনি আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন।

মো. আরিফুর রহমান আরও বলেন, সুচিকিৎসার জন্য ইমনকে উপজেলা প্রশাসনে মানবিক আবেদনের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। রোববার দুপুরে তাঁকে পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *