মোদির ‘কঠোর নীরবতা’য় ফাঁকা পত্রিকা ছাপল টেলিগ্রাফ!

আন্তর্জাতিক

প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর পাঁচ বছরের মধ্যে একটিবারের জন্যও সাংবাদিকদের মুখোমুখি হননি তিনি। অবশেষে লোকসভা নির্বাচনের শেষ পর্যায়ে এসে সাংবাদিকদের সামনে উপস্থিত হলেও লিখিত বক্তব্য দেওয়ার পর প্রশ্নোত্তরপর্বে ঠাঁই মুখ বুজে বসে রইলেন!

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির এভাবে নিশ্চুপ বসে থাকা ভালোভাবে নেয়নি ভারতের সংবাদমাধ্যম। দেশটির সনামধন্য প্রভাবশালী সংবাদপত্র টেলিগ্রাফ রীতিমত আরেক খবরের জন্ম দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী সাংবাদিকদের কোনো প্রশ্নের উত্তর না দেওয়ায় তারা গতকাল শনিবার দিনের প্রধান খবরের জায়গা ফাঁকা রেখে প্রকাশ করেছে।

পত্রিকার প্রথম পাতার ফাঁকা জায়গায় বড়ো করে নৈঃশব্দের একটি সাংকেতিক চিহ্ন ব্যবহার করেছে টেলিগ্রাফ। তার নিচে লেখা রয়েছে, ১ হাজার ৮১৭ দিন অপেক্ষার যে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে তাতেও নিঃশব্দ নেমে এসেছে।

এরপর ছোট ছয়টি ছবি পাশাপাশি রেখে সংবাদ সম্মেলনে মোদির অভিব্যক্তি কী ছিল সেটা প্রকাশ করেছে টেলিগ্রাফ। এতে দেখা গেছে যখন প্রশ্নোত্তর পর্ব শুরু হয় তখন গালে হাত দিয়ে আনমনা হয়ে আছেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রতিটি ছবির নিচে আলাদা ক্যাপশনও লেখা হয়েছে। ক্যাপশনে বলা হয়েছে, ৩৭ মিনিটে যখন দলের সভাপতি অমিত শাহ প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছেন তখন মোদি রুমের চারপাশ তাকিয়ে পর্যবেক্ষণ করছেন। ৪১ মিনিটে যখন সরাসরি প্রধানমন্ত্রীকে প্রশ্ন করা হয়, তখন মোদি উত্তর না দিয়ে অমিত শাহকে দেখিয়ে দিয়ে বলেন, ‘আমি অনুগত সৈনিক। দলের সভাপতিই আমাদের সবকিছু।’ ৪৪ মিনিটে অমিত যখন প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছেন তখনও মোদি গালে হাত দিয়ে কক্ষের একদিকে অপলক দৃষ্টিতে তাকিয়ে আছেন। ৪৫ মিনিটেও যখন অমিত শাহ প্রশ্নের উত্তর দেওয়া নিয়ে ব্যস্ত তখনও মোদি আনমনে। ৪৭ মিনিটে অমিত কথা বলছেন, আর মোদি চিন্তায় ডুবে আছেন। ৫১ মিনিটে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দিতে অমিত যখন ব্যস্ত তখন মোদি আরো গভীর চিন্তায় নিমজ্জিত।

সম্মেলনের ৫২ মিনিটে অমিত শাহ বললেন সবাইকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। এরপর তারা দুইজনে স্থান ত্যাগ করলেন।

এই ছবিগুলোর নিচে একটি বক্স এঁকে ফাঁকা জায়গা রেখে নিচে টেলিগ্রাফ লিখেছে, এ ফাঁকা জায়গাটি টেলিগ্রাফ সংরক্ষণ করে রেখেছে। যখন প্রধানমন্ত্রী সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্নের উত্তর দেবেন তখন এ জায়গা পূরণ করা হবে। ফাঁকা জায়গায় চোখ রাখুন!

এদিকে মোদির এ কাণ্ডের পর দেশজুড়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। বিশিষ্ট লেখক কৃষাণ প্রতাপ শিং টুইটারে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, তাহলে কি গত পাঁচ বছর আমরা যা পেয়েছি তা সবই ভুল ছিলো? আসলেই মোদি কি খেলার পুতুল, আর অমিত শাহ তার চালক?

টেলিগ্রাফের আরেকটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শুক্রবার কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধীর সম্ভাব্য সংবাদ সম্মেলনের খবর প্রকাশের পর প্রায় একই সময়ে হঠাৎ সংবাদ সম্মেলনের ডাক দেয় বিজেপি। কিন্তু সংবাদ সম্মেলন ডেকে মোদি কেনো কোনো প্রশ্নের উত্তর দিলেন না বিষয়টি নিয়ে ধাঁধায় রয়েছে গণমাধ্যম।

-এডি/এইচএ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *