২১শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং, মঙ্গলবার

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় ব্রীজ নির্মাণে ঠিকাদারের অবহেলায় এলাকাবাসীর ভোগান্তি

আপডেট: ডিসেম্বর ৯, ২০১৯

| neela

এম শিমুল খান, গোপালগঞ্জ : গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় একটি ব্রীজ নির্মাণে ঠিকাদারের অবহেলার কারনে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে এলাকাবাসী। এতে করে বিঘিœত হচ্ছে হাজার হাজার বিঘা ইরি চাষ। উপজেলার কান্দি ইউনিয়নের-মাচারতারা, হিজল বাড়ী, লেবুবাড়ী, ধারাবাশাইলসহ আশপাশের গ্রাম গুলির কৃষকরা এ ভোগান্তির শিকার হচ্ছে।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, দক্ষিণ মাচারতারা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন ব্রীজ নির্মাণে বাধের কারণে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। এ কারণে এসব গ্রামের কৃষকরা ইরি ধানের বীজতলা বানাতে পারছে না। তাতে অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে হাজার হাজার বিঘা জমির ইরি চাষ। এ ছাড়াও নদী বেষ্টিত এলাকা হওয়ায় নৌ-যান চলাচলে বিঘœ ঘটায় পোল্ট্রি ও মৎস্য খামারিরা ফিড, মাছ, মুরগি, ডিমসহ অন্যান্য মালামাল বহন করতে পারছে না।

ধারাবাশাইল ও নয়াকান্দি তরুর বাজারের ব্যাবসায়ীরা বহন করতে পারছেন না তাদের পণ্য। অন্য দিকে ব্রীজের গোড়ায় মাটি না থাকার কারণে বিদ্যালয়ের কমলমতি শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসীর যাতায়াতে করতে সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে ওই এলাকার কৃষকসহ সাধারণ মানুষ।

নবনির্বাচিত ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক তুষার মধু, শিক্ষক সুমন্ত সমাদ্দার, আ: ওসমান গণি, মহসিন বেপারী, শামীম বেপারী, প্রিয় তাজ, অনিকা বিশ্বাস, চিত্ত মধু, মৃনাল কান্তি মধু, কুমদ মধু, ইসমাইল বেপারীসহ শত শত এলাকাবাসী সাংবাদিকদের বলেন, ব্রীজ নির্মাণের কাজ ২ মাস আগেই শেষ হয়েছে। টুঙ্গিপাড়ার ঠিকাদার টুটুল শেখকে আমরা বাধ অপসারণের জন্য বারবার অনুরোধ করছি। কিন্তু তিনি কর্ণপাত করেন না। এখন জলাবদ্ধতার কারণে অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে ইরি আবাদ, খামারি-ব্যাবসায়ী সকলেই পড়েছে বিপাকে। এই বিশাল বাধ অপসারণ করে এলাকাবাসীকে ভোগান্তি মুক্ত করার জন্য আমরা উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন তারা।

এ বিষয়ে ব্রীজটির নির্মাণ কারী ঠিকাদার টুটুল শেখের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি সাংবাদিকদের জানান, নিউজ করলে বাধ অপসারণের কাজ দেরিতে করব, কারণ আমার সিডিউলে এখনও অনেক সময় আছে।